▬ একটি অসাধারন শিক্ষামুলক গল্প ▬

এক ঈগল একবার বনমুরগীর বাসায় ডিম পেড়ে গেল । বনমুরগী ডিমে তা দিল । বাচ্চা ফুটল । ঈগলের বাচ্চাটি বনমুরগীর বাচ্চা হিসেবে পালিত হতে লাগল । স্বভাবও তার হয়ে উঠল মুরগীর মত। বনমুরগীর মত ডাকে। উড়তেও পারে না।

একদিন সে দেখল আকাশে ডানা মেলে উড়ে যাচ্ছে ঈগল । সে বিস্ময়ে প্রশ্ন করল, এটা কি?
বনমুরগীরা উত্তর দিল, ওটা ঈগল। অসাধারন পাখি। তুমি ওর মত দেখতে হলেও তুমি বনমুরগী হয়ে গেছ। ওর মত কখনো হতে পারবে না।

ঈগলের বাচ্চা এই কথা বিশ্বাস করে কোন দিন উড়ার চেষ্টা ও করল না । এভাবেই সে কাটিয়ে দিল তার পুরোটা জীবন । একসময় তার মৃত্যু হল ।

তার জন্ম হয়েছিলো আকাশের উঁচুতে উড়ার জন্য, কিন্তু তা সে জানতেও পারল না !!

MORAL :—> অধিকাংশ মানুষও এরকম । অসীম ক্ষমতা নিয়ে জন্মায়। বেশীরভাগই তা কাজে লাগাতে পারে না । আসুন আমরা অধিকাংশ না হয়ে অন্যতম হতে চেষ্টা করি !!!

এক রসিক স্যার ক্লাসে এসে ভ্যালেন্টাইন ডে তে………….

এক রসিক স্যার ক্লাসে এসে ভ্যালেন্টাইন ডে তে তার ছাত্র-ছাত্রীদের একটা করে অফসেট পেপার দিয়ে বললেনঃ আজ ভ্যালেন্টাইন ডে। তাই আজ লেকচার
দেব না! তোমাদের কাছে দেয়া কাগজে তোমাদের ভালোলাগার মানুষটির নাম লিখ!!!


৩০ সেকেণ্ডের মধ্যে সব ছেলেরা কাগজ
জমা দিয়ে দিল!


২০ মিনিট পর থেকে মেয়েরা একে একে বলতে শুরু করলঃ এক্সট্রা পেইজ প্লীজ…!! :O 😛 😀

*** মেয়েদের হৃদয়ের ফাঁকা স্থান ছেলেদের থেকে অনেক বেশি. . .কিছুতেই মন ভরেনা !! 😉 ***

কখনও কখনও ঝুঁকি নাও ! সব সময় সত্যি কথা বল !………….

কখনও কখনও ঝুঁকি নাও !  সব সময় সত্যি কথা বল !  কাউকে মুখের উপর না করোনা !  জীবনে কখনও কাউকে বল, “ভালবাসি” !  সত্যিকারের ভালোবাসা অনুভব করো !  বোকাটাকে বল যে সে তোমাকে কষ্ট দেয় !  অপমান যার প্রাপ্য, তাকে আবার ছেড়োনা !  যদি মন চায়, বৃষ্টিতে ভিজে একাকী বসে কান্না করো !  পেট ব্যথা না হওয়া পর্যন্ত হাসতে থাকো !  হয়তোবা পারদর্শী না, তবুও নাচতে পারো !  বোকার মত ছবির জন্য পোজ দিতে পারো !  কাউকে HUG কর, যখন তার খুবই দরকার !  শিশুদের মত দুষ্টু হও !  বাবা-মাকে কষ্ট দিও না !  Live, Love ! Laugh ! And Keep Smiling….কেননা,  U LIVE JUST ONCE !

আপনি কি রূপবান কিংবা রূপবতী হতে চান ? নিম্মলিখিত প্রসাধনীগুলো ব্যবহার করে দেখতে পারেন……….

আপনি কি রূপবান কিংবা রূপবতী হতে চান ? নিম্মলিখিত প্রসাধনীগুলো ব্যবহার করে দেখতে পারেনঃ

► ঠোঁটের জন্য – সত্য,
► কণ্ঠস্বরের জন্য – প্রার্থনা,
► চোখের জন্য – সহানুভূতি,
► হাতের জন্য – দানশীলতা,
► হৃদয়ের জন্য – ভালোবাসা,
► মুখের জন্য – হাসি।

সত্যিকারের সৌন্দর্যের জন্য ফেয়ার এন্ড লাভলী জরুরি নাহ !

ভুল স্বীকার করতে লজ্জা নেই, অহংকার করে সত্যকে প্রত্যাখ্যান করাতে লজ্জা আছে।…………

তর্করত অবস্থায় হঠাৎ আপনি বুঝতে পারলেন যে আপনি ভুল অবস্থানে আছেন। আপনি যদি তর্ক চালিয়ে যান তবে আপনি মানুষ। যদি ভুল স্বীকার করার মাধ্যমে নিজের অহংকারকে সত্যের সামনে ত্যাগ করতে পারেন তাহলে আপনি জৈবিক মনুষ্যত্ব ছেড়ে মুসলিমের (আত্মসমর্পণকারীর ) স্তরে উঠতে পারলেন। ভুল স্বীকার করতে লজ্জা নেই, অহংকার করে সত্যকে প্রত্যাখ্যান করাতে লজ্জা আছে। নিজের ইগোর কাছে হেরে যাবার লজ্জা।

পাগলাগারদের ডাক্তার এক পাগলের কাছে গিয়ে বলল………….

পাগলাগারদের ডাক্তার এক পাগলের কাছে গিয়ে বলল – আপনার জন্য একটা সুসংবাদ আর একটা দুঃসংবাদ আছে। কোনটা আগে শুনতে চান?
পাগল ফিচ করে হেসে – সুসংবাদটাই আগে বলেন।
ডাক্তার – সুসংবাদটা হলো, আপনি আজ যে দুঃসাহসিক কাজ করেছেন, হাসপাতালের পুকুরে ডুবন্ত আরেক পাগলকে যেভাবে ঝাপিয়ে পড়ে উদ্ধার করেছেন, তাতে আমরা নিশ্চিত আপনি আর পাগল নন। আপনি সুস্থ হয়ে গেছেন। এবার আপনি নিশ্চিন্তে বাড়ি যেতে পাড়েন।
পাগল – আর দুঃসংবাদটা কি?
ডাক্তার – দুঃসংবাদটা হচ্ছে, আপনি যে পাগলকে পানি থেকে উদ্ধার করেছিলেন, সে পরবর্তিতে আত্মহত্যা করেছে পুকুরের পাশের আমগাছের সাথে গলায় দড়ি দিয়ে।
পাগল আবারো ফিচ করে হেসে – আরে না! ও তো নিজে গলায় দড়ি দেয় নাই। পুকুর থিকা উঠানোর পর দেখলাম ব্যাটা ভিজা পুরা চুপচুপা হইয়া রইছে, তাই আমিই ওরে আম গাছের লগে লটকাইয়া শুকাইতে দিছিলাম :Pপাগলাগারদের ডাক্তার এক পাগলের কাছে গিয়ে বলল – আপনার জন্য একটা সুসংবাদ আর একটা দুঃসংবাদ আছে। কোনটা আগে শুনতে চান?
পাগল ফিচ করে হেসে – সুসংবাদটাই আগে বলেন।
ডাক্তার – সুসংবাদটা হলো, আপনি আজ যে দুঃসাহসিক কাজ করেছেন, হাসপাতালের পুকুরে ডুবন্ত আরেক পাগলকে যেভাবে ঝাপিয়ে পড়ে উদ্ধার করেছেন, তাতে আমরা নিশ্চিত আপনি আর পাগল নন। আপনি সুস্থ হয়ে গেছেন। এবার আপনি নিশ্চিন্তে বাড়ি যেতে পাড়েন।
পাগল – আর দুঃসংবাদটা কি?
ডাক্তার – দুঃসংবাদটা হচ্ছে, আপনি যে পাগলকে পানি থেকে উদ্ধার করেছিলেন, সে পরবর্তিতে আত্মহত্যা করেছে পুকুরের পাশের আমগাছের সাথে গলায় দড়ি দিয়ে।
পাগল আবারো ফিচ করে হেসে – আরে না! ও তো নিজে গলায় দড়ি দেয় নাই। পুকুর থিকা উঠানোর পর দেখলাম ব্যাটা ভিজা পুরা চুপচুপা হইয়া রইছে, তাই আমিই ওরে আম গাছের লগে লটকাইয়া শুকাইতে দিছিলাম 😛

এক প্রবাসীর স্ত্রী ব্যাংক একাউন্ট খোলার জন্য গেলেন। ব্যাংক কর্মকর্তা সবকিছু ঠিকঠাক করে বলেন, আপা! এখানে একটি সাইন করুন—

এক প্রবাসীর স্ত্রী ব্যাংক একাউন্ট খোলার জন্য গেলেন। ব্যাংক কর্মকর্তা সবকিছু ঠিকঠাক করে বলেন, আপা! এখানে একটি সাইন করুন—
সাইন! এটা আবার কি?
এখানে একটি দস্তখত করুন।
দস্তখত! সেটা আবার কি?
বড়ই মুশকিল দেখছি। স্বামীর কাছে চিঠিপত্র দেন না?
দেব না কেন?
অবশ্যই দেই।
তাহলে ইতির পর যা লেখেন, এখানেও তা লিখুন।
ভদ্র মহিলা লিখলেন, ‘তুমার সোহাগী’

দু’বন্ধুর মাঝে আলাপ হচ্ছে।

দু’বন্ধুর মাঝে আলাপ হচ্ছে।
প্রথম বন্ধু : স্ত্রীর জন্য আমার আর মুখ দেখাবার উপায় রইল না। রোজ রাতে বারে যায়।
দ্বিতীয় বন্ধু: ছিঃ ছিঃ ছিঃ কী জঘন্য কথা! কী করে বারে গিয়ে?
প্রথম বন্ধু : আমাকে টেনেহিঁচড়ে বাড়িতে নিয়ে আসে।

ছেলেঃ এই তোমরা কয় ভাইবোন?
মেয়েঃ” আমরা ৩৬ ভাইবোন…”
ছেলেঃ” তোমাদের ঘরে কি Family Planning(পরিবার পরিকল্পনা) এর লোক আসে নি???”
মেয়েঃ” এসেছিলো… কিন্তু স্কুল ভেবে চলে গেছে…” :p

Kiss” কাকে বলে ????

Kiss” কাকে বলে ????

জ্যামিতি অনুসারে…
“Kiss হচ্ছে দুইটা ঠোঁট এর ন্যূনতম দূরত্ব!!”:)
:
:
:
:
:
ইকনমিক্সঃ
“Kiss হচ্ছে এমন একটা জিনিশ যার চাহিদা সব সময় যোগান অপেক্ষা বেশি থাকে”

ফিজিক্সঃ
“এটা হচ্ছে মানবদেহকে চার্জ করার পদ্ধতি”

কম্পিউটারঃ
“ দুইটা দেহ এক টা আরেকটা এর সাথেসংযুক্ত! থাকে কোন ডাটা ক্যাবল ছাড়াই!!”

টাংকিবাজদের/রোমিওদের মতেঃ
“Kiss এমন একটা জিনিস যা খাইতেও মজা আবার খাওয়াইতেও মজাই মজা!!”

রসায়নঃ
“দুটি মৌলের পারস্পারিক অবস্থানের ফলে উত্‍পন্ন ইলেকট্রন আদান এবং প্রদান”

একাউন্টিং:
“দুটি ঠোঁটের ডেবিট ক্রেডিট !!!”

যুক্তি বিদ্যাঃ
প্রকৃতির নীয়মানুবর্তিতা নীতি এবং কার্যকরন নীয়মের উপর ভিত্তি করে দুই ভিন্ন ব্যাক্তি স্বত্তার একটি বিশেষ অঙ্গের (সাধারণত ঠোট) এর মিশ্রনকে Kiss বলে অভিহিত করা হয়।

লুলবিদ্যাঃ
Kiss হচ্ছে বৃহত্তর স্বার্থের উদ্দেশ্যে ক্ষুদ্রতম পূর্বপ্রস্তুতি!!